(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Friday, March 29, 2013

ভোটের মুখে পঞ্চায়েত কর্মীদের পদোন্নতি, বেতনবৃদ্ধির ঘোষণা|


GANASHAKTI

ভোটের মুখে পঞ্চায়েত কর্মীদের পদোন্নতি, বেতনবৃদ্ধির ঘোষণা|

নিজস্ব প্রতিনিধি

কলকাতা, ২৮শে মার্চ— হঠাৎ করেই ত্রিস্তর পঞ্চায়েত কর্মীদের পদোন্নতি, বেতন কাঠামোসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর ঘোষণা করলো রাজ্য সরকার। পঞ্চায়েত নির্বাচনের দোরগোড়ায় এভাবে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার ঘোষণায় বিস্মিত সরকারী অন্যান্য দপ্তরের কর্মচারীরা। এখনই এই পাইয়ে দেওয়ার ঘোষণা কী রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত? উত্তরে পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি বলেন, সরাকার তো একটা রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিত্ব করছে। যা কিছু ঘোষণা হবে সেখানে রাজনীতি থাকতে পারে। এদিন পঞ্চায়েত মন্ত্রী বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতা বৃদ্ধির কথাও ঘোষণা করেছেন। বামফ্রন্টের আমলে বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতার প্রকল্প চালু হয়েছিল। তৃণমূল রাজ্য সরকারের ২২মাসেই এই প্রকল্প কার্যত বন্ধ হয়ে গেছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনের মুখে আবার নতুন করে ভাতাবৃদ্ধির ঘোষণাকে গরিব মানুষকে নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। বৃহস্পতিবার সরকার ভাতা বৃদ্ধির যে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে তা কার্যকরী হবে ২০১২সালের অক্টোবর মাস থেকে বলে জানানো হয়েছে। রাজ্য ২০১২সালের জানুয়ারি মাস থেকেই এই প্রক্ল্প বন্ধ হয়ে রয়েছে। গুটিকয়েক মানুষের কাছে এখন এই ভাতার টাকা এখন পৌঁছয়। বি পি এল কার্ড আছে এমন মানুষের ভাতার পরিমাণ ৪০০টাকা থেকে বাড়িয়ে ৬০০টাকা করা হলেও ৬০থেকে ৭৯বছর বয়স্ক মানুষের ভাতার পরিমাণ ৪০০টাকাই রাখা হয়েছে। প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকারের বড় অংশের অনুদান থেকেই এই প্রকল্প চলে। গত এক বছরে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা এলেও এরাজ্যের গরিব বৃদ্ধ এবং বিধবারা তাঁদের ভাতার টাকা পাননি।

এদিন পঞ্চায়েত মন্ত্রী জানিয়েছেন, ১১টি ক্ষেত্রে পঞ্চায়েত কর্মীদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি হবে। যেমন জেলা পরিষদের সহকারী বাস্তুকারের ২০শতাংশ পদপূরণ করা হবে। গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্মাণ সহায়কদের মধ্যে থেকেই এই পদে নিয়োগ হবে। বলা হয়েছে রাজ্যের ৩৪১টি পঞ্চায়েত সমিতির জন্য ৩৪১টি অ্যাকাউন্টেন্ট পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। পঞ্চায়েত সমিতির উপ-সচিব অথবা ক্যাশিয়ার কাম স্টোরকিপারদের থেকে এই পদগুলিতে নিয়োগ হবে। গ্রাম পঞ্চায়েতের সচিব এবং কর্ম সহায়কদের পদ থেকে সংরক্ষণের হার ২৫শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩৫শতাংশ করা হয়েছে। এছাড়া ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের বিভিন্ন পদে পদোন্নতির ঘোষণা এদিন করা হয়েছে। নতুন করে শূন্য পদে নিয়োগের কথা নেই। পঞ্চায়েতের যে পরিকাঠামো ছিল সেখান থেকেই কর্মী নিয়ে পঞ্চায়েতের নতুন পদে বসিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। নির্বাচনের ঠিক আগেই এই ঘোষণায় বিভিন্ন মহল সরকারের পাইয়ে দেওয়া রাজনীতির নিকৃষ্ট উদাহরণ বলে মনে করছে।

No comments:

Post a Comment