(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Friday, March 15, 2013

সামাজিক সুরক্ষার ৮কোটি টাকা শ্রমদপ্তরে পড়ে রয়েছে


সামাজিক সুরক্ষার ৮কোটি 
টাকা শ্রমদপ্তরে পড়ে রয়েছে

নিজস্ব সংবাদদাতা

হলদিয়া, ১৪ই মার্চ— নির্মাণ, পরিবহন ও বিড়ি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত পূর্ব মেদিনীপুরের প্রায় লক্ষাধিক শ্রমিককে বঞ্চনা করছে তৃণমূল সরকার। সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে জেলার শ্রমিকদের জন্য বরাদ্দকৃত কোটি কোটি টাকা মাসের পর মাস কোষাগারে পড়েই রয়েছে। গৃহনির্মাণ থেকে পেনশন, মৃত্যুকালীন সাহায্য থেকে চিকিৎসা খরচ বা গরিব শ্রমিক পরিবারগুলির শিক্ষাভাতা, সরকারী উদাসীনতায় শ্রমিকদের প্রাপ্য কোন টাকাই দিচ্ছে না শ্রমদপ্তর। বৃহস্পতিবার এই অভিযোগ করলেন সি আই টি ইউ নেতা অমিয় সাহু।

তাঁর অভিযোগ, ‘পূর্ব মেদিনীপুরে সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পের বরাদ্দকৃত প্রায় ৮কোটি টাকা শ্রমদপ্তরে পড়ে রয়েছে ছ’মাসেরও বেশি সময় ধরে। শ্রমদপ্তর ও জেলা প্রশাসন এবিষয়ে একেবারেই উদাসীন। তৃণমূল পরিচালিত জেলাপরিষদ বা পঞ্চায়েত সমিতিগুলিও কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেনা। বণ্টনে গড়িমসির জন্য শ্রমদপ্তরের আধিকারিকদের একাংশই দায়ী। প্রতিটি ব্লকে যে মিনিমাম ওয়েজ অফিসাররা রয়েছেন তাঁদের একাংশ বিস্তর টালবাহানা করছে গরিব নির্মাণ, পরিবহন ও বিড়ি শ্রমিকদের সরকারী সাহায্য তুলে দিতে’।

শ্রমিকরা যাতে প্রাপ্য সময়মতো পেতে পারেন, এবার তা নিয়ে আন্দোলনে সি আই টি ইউ। অমিয় সাহু জানান, ‘সি আই টি ইউ-র তরফে শ্রমদপ্তরকে চাপ দেওয়ার উদ্যোগ শুরু হয়েছে। হলদিয়ায় শ্রমদপ্তরের ডেপুটি লেবার কমিশনারের কাছে ইতোমধ্যেই ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। জেলার চারটি মহকুমায় অ্যাসিস্ট্যান্ট লেবার কমিশনের কাছে শ্রমিকদের প্রাপ্য আদায়ের জন্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ দাবি জানিয়েছেন।’ অভিযোগ, শ্রমদপ্তর ও জেলা প্রশাসনের মধ্যে সমন্বয়ের অভাবেই জেলার সামাজিক সুরক্ষার টাকা বিলি বণ্টন হচ্ছে না। ফলে জেলার ৪০ হাজারের বেশি নির্মাণ শ্রমিক পেনশন, মেডিক্যাল, শিক্ষাসহ দশটি বিভিন্ন ধরনের ভাতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। হাজার হাজার বিড়ি শ্রমিক পরিবার গৃহনির্মাণ প্রকল্পের টাকাই পাননি। পরিবহন শ্রমিকরাও বঞ্চিত। শুধুমাত্র তমলুক মহকুমা শ্রমদপ্তরেই প্রায় আড়াই কো‍‌টি টাকা প‍‌ড়ে রয়েছে, বিলিই হয়নি।




No comments:

Post a Comment